You are currently viewing গাক এসইপি প্রকল্পের উদ্যোগে পরিবেশবান্ধব হলোব্রিকস্, ব্লকস্ ও টাইলস্ ব্যবহারে উদ্বুদ্ধকরণ ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

গাক এসইপি প্রকল্পের উদ্যোগে পরিবেশবান্ধব হলোব্রিকস্, ব্লকস্ ও টাইলস্ ব্যবহারে উদ্বুদ্ধকরণ ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

  • Post author:
  • Post category:News

গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক) কর্তৃক বাস্তবায়িত সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট (এসইপি) প্রকল্পের আওতায় পরিবেশবান্ধব হলোব্রিকস্, ব্লকস্ ও টাইলস্ ব্যবহারে উদ্বুদ্ধকরণ ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গাক’র প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সংস্থার সিনিয়র পরিচালক ড. মোঃ মাহবুব আলম। সভাপতির বক্তব্যে সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেন বলেন দেশের সম্ভাবনাময় এই খাতে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি কাজ করতে পেরে আমরা আনন্দিত। উপ-প্রকল্পের আওতায় বগুড়ার লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পে পরিবেশগত অনুশীলন সহ উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের যে ছোঁয়া পরেছে তা অব্যহত রাখতে গাক উদ্যোক্তাদের পাশে ছিলো এবং আগামীতেও থাকবে। তিনি আরো বলেন এসইপি প্রকল্পের আওতায় উদ্যোক্তাদের মাঝে সহজ শর্তে ঋণ সুবিধা প্রদানের পাশাপাশি উদ্যোক্তাদের কারখানা শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিভিন্ন পদক্ষেপ, কারখানা মালিক ও শ্রমিকদের দক্ষতা উন্নয়নে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ আয়োজন, মডেল ওয়ার্কশপ স্থাপন, প্রযুক্তি ও মান সম্পন্ন পণ্য চাহিদা পূরণে কমন সার্ভিস সেন্টার স্থাপন, শ্রমিক-কর্মচারীদের ব্যবহারের জন্য ক্লাস্টার ভিত্তিক টয়লেট স্থাপন, ফাউন্ড্রি কারখানার সৃষ্ট বর্জ্য হতে ব্লকস্ ও ব্রিকস্ নির্মাণ সহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম মাঠপর্যায়ে বাস্তবায়িত হচ্ছে যা দাতা সংস্থা, সাধারণ জনগণ ও উদ্যোক্তাদের নিকট প্রশংসনীয় হয়েছে।

বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, হলোব্রিকস্- ব্লকস্ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ, নির্মাণ শ্রমিক, ফাউন্ড্রি কারখানার মালিক এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের অংশগ্রহণে সংস্থার প্রধান কার্যালয়স্থ গাক কনফারেন্স রুম, গাক টাওয়ার বনানী বগুড়ায় অনুষ্ঠিত হয়। “পরিবেশবান্ধব টেকসই অনুশীলন এর মাধ্যমে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের কৃষি-যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জামাদি উৎপাদন দক্ষতা বৃদ্ধি‘‘ উপ-প্রকল্পের আওতায় বগুড়া সদর, শাজাহানপুর ও শেরপুর উপজেলায় গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক) বাস্তবায়িত সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট (এসইপি) প্রকল্পটির কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বগুড়ায় গড়ে ওঠা প্রায় শতাধিক ফাউন্ড্রি কারখানার বর্জ্য (স্ল্যাগ) হতে যেভাবে পরিবেশ দূষণ হয় তার মারত্মক প্রভাব ও ভবিষ্যৎ বিপর্যয় রোধে এসইপি প্রকল্পের আওতায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়। প্রকল্পের সহায়তায় দেশে সর্বপ্রথম ফাউন্ড্রি স্ল্যাগ ব্যবহার করে পরিবেশবান্ধব হলোব্লকস্ ও ব্রিকস্ প্রস্তুত করার মাধ্যমে প্রকল্পের অন্যতম অর্জন বর্জ্যকে সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে সম্পদে পরিণত করার কাজ শুরু হয়। বিশ্ব-ব্যাংক ও পিকেএসএফ এর আর্থিক ও কারিগরি সহযোগিতায় গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক) উপ-প্রকল্পের সহায়তায় প্রস্তুতকৃত পরিবেশবান্ধব হলোব্লকস্, ব্রিকস্ ও টাইলস্ ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে কর্শাালার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোঃ আব্দুল্লাহ আল ফারুক, উপ-বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী, গণপূর্ত বিভাগ, বগুড়া। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে গাক এসইপি প্রকল্পের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমের ভূয়সী প্রসংশা করেন। উপস্থিত নির্মাণ শ্রমিকদের স্ল্যাগ নির্মিত ব্লকস্ ও ব্রিকস্ ব্যবহারে পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি তার দপ্তরের পক্ষ হতে বিভিন্ন স্থাপনায় ব্লকস্ ও ব্রিকস্ ব্যবহারের বিষয়ে জণসাধারণকে উদ্বুদ্ধ করার বিষয়ে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোঃ মিকাইল হোসেন, পরিদর্ক, পরিবেশ অধিদপ্তর, বগুড়া জেলা কার্যালয়, বগুড়া। মোঃ পারভেজ হাসান, সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল), এলজিইডি, বগুড়া। মোঃ রবিন ইসলাম, উপ- সহকারী প্রকৌশলী, শাজাহানপুর, বগুড়া। মোঃ হাবিবুর রহমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, অনন্যা গ্রুপ, ঢাকা।

প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোঃ সাইফুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় কর্মশালায় এসইপি প্রকল্পের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্ক্রম ও হলোব্লকস/ব্রিকস্ এর ব্যবহার বিষয়ে প্রিজেন্টেশন প্রদান করেন মোঃ জিয়া উদ্দিন সরদার, সমন্বয়কারী (ডকুমেন্টেশন এন্ড কমিউনিকেশন) গাক। স্ল্যাগ নির্মিত নির্মাণ সামগ্রী প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান জেড এইচ স্টার ব্রিকস্ এন্ড ব্লকস্ লিঃ এর পক্ষে তাদের পণ্যের গুণগত মান ও ব্যবহার বিষয়ে আলোচনা করেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাখলিমুর রহমান টিটু। ফাউন্ড্রি বর্জ্য উৎপাদন ও সরবরাহ বিষয়ে বক্তব্য রাখেন গোলাম মুক্তাদির ওলি, সিইও , আলমাদিনা মেটাল ও ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্শপ, বিসিক, বগুড়া। দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রকল্পের কর্মকর্তা, সংস্থার উর্ধতন কর্মকর্তাগণ সহ ৬০ জন অংশগ্রহণ করেন।